বাদাম

আমাদের দেশে বাদাম অতি সুপরিচিত একটি ফল এবং বাদামের রয়েছে প্রচুর পুষ্টিগুণ। মানুষের শরীরের জন্য বাদাম যে কত উপকারী তা আমরা অনেকেই জানিনা। বাদাম একটি স্বাস্থ্যসম্মত খাবার এবং এই বাদামে রয়েছে ফাইবার, প্রোটিন এবং বিভিন্ন পুষ্টিগুণ যা মানুষের শরীরের বিভিন্ন রোগ নিরাময়ে সহায়তা করে থাকে। বিভিন্ন ধরনের বাদাম রয়েছে যেমন: চিনা বাদাম, পেস্তা বাদাম, আখরোট, কাজু বাদাম এবং কাঠ বাদাম বা আমন্ড। বাদামের রয়েছে প্রচুর পরিমাণ খাদ্য শক্তি যা ক্ষুধা নিবারনে সহায়তা করে থাকে। বর্তমানে আমাদের এই বাংলাদেশে সব ধরনের বাদাম পাওয়া যায়। পুষ্টির চাহিদা মেটাতে প্রতিদিন বাদাম খেলে আপনি থাকবেন শারীরিক ভাবে সুস্থ্য।

প্রতিদিন কেন বাদাম খাবেনঃ বাদামের রয়েছে নানান পুষ্টিগুন। প্রতিদিন কেন বাদাম খাবেন, জেনে নিন তার গুরুত্বপূর্ণ কারণ-

  • হার্ট সুস্থ্য রাখতে বাদামঃ হার্ট বা হৃদপিন্ড সুস্থ্য সবল রাখতে বাদাম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। বাদামে রয়েছে ওমেগা-৩ যা হার্ট বা হৃদপিন্ড ভাল রাখতে এবং হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমাতে কাজ করে থাকে।
  • হাড় শক্ত করতে বাদামের ভূমিকাঃ বাদাম হাড় শক্ত করতে এবং রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।
  • বাদাম রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করেঃ বাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ক্যালসিয়াম, আয়রন এবং ভিটামিন যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, মনকে সতেজ করে এবং দৈহিক গঠন সুন্দর করে থাকে।
  • গর্ভবতী নারীদের সুস্বাস্থ্যের জন্য বাদামঃ গর্ভবতী নারীদের সুস্বাস্থ্যের জন্য বাদাম অনেক উপকারী। বাদাম গর্ভবতী মা এবং গর্ভের সন্তান উভয়ের জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।
  • মানসিক চাপ কমাতে বাদামঃ বাদাম মানসিক দুশ্চিন্তা বা মানসিক চাপ কমাতে এবং চিন্তা শক্তি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে থাকে।
  • বাদাম ত্বক মসৃণ রাখেঃ বাদামে যে ভিটামিন রয়েছে তা ত্বক মসৃণ রাখতে এবং বয়সের ছাপ দূর করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাছাড়া চোখের নীচের কালো দাগ দূর করতে বাদামের ভূমিকা অপরিসীম।
  • খারাপ কোলেষ্টেরল দূর করতে বাদামের ভূমিকাঃ যারা উচ্চ কোলেষ্টেরল জনিত সমস্যায় ভুগছেন তাদের জন্য বাদাম অনেক উপকারী। নিয়মিত কাঠ বাদাম খেলে খারাপ কোলেষ্টেরল জনিত সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
  • ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে বাদামঃ বাদামে যে ফাইবার রয়েছে তা রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে যা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।
  • কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময়ে বাদামঃ নিয়মিত বাদাম খেলে কিডনি ও লিভার ভাল থাকে। তাছাড়া শ্বাসকষ্ট ও কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময়ে বাদাম সহায়তা করে থাকে।

তবে যাদের হজমে সমস্যা আছে বা বাদাম খেলে গ্যাস, অ্যালার্জি বা অ্যাসিডিটি হয় তাদের বাদাম এড়িয়ে চলা উচিৎ। পুষ্টিগুণে ভরপুর এ খাবার হৃদপিন্ডকে রাখে সুস্থ্য। ভিটামিন, মিনারেল, প্রোটিন, ফাইবার ও তেলের জরুরী উৎস হচ্ছে বাদাম। বাদামে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমানে কার্বোহাইড্রেট। তাই পরিমিত পরিমাণে বাদাম খেলে শারীরিক ভাবে সুস্থ্য থাকা সম্ভব।

সারা বিশ্বে বিভিন্ন রকমের বাদাম উৎপাদিত হয় এবং প্রতিটি বাদামই পুষ্টিগুণে ভরপুর। জানা যাক বিভিন্ন বাদামের খাদ্য উপাদান ও পুষ্টিগুণ সম্বন্ধে।

চিনাবাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমান প্রোটিন, আয়রন, ফাইবার, ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, সোডিয়াম, ভিটামিন- এ, বি, সি ।

চিনাবাদামের স্বাস্থ্য উপকারিতাঃ

  • চিনাবাদাম ক্যানসার এবং হৃদযন্ত্রের ক্ষতি থেকে রক্ষা করেঃ চিনাবাদাম অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ, যা ক্যানসার এবং হৃদযন্ত্রের ক্ষতি থেকে রক্ষা করে থাকে। তাছাড়া নিয়ম মেনে প্রতিদিন পরিমানমত চিনাবাদাম খেলে হার্ট সুস্থ্য থাকে।
  • চিনাবাদাম দেহ গঠনে সাহায্য করেঃ চিনাবাদামে প্রচুর পরিমানে প্রোটিন থাকে যা দেহ গঠনে সাহায্য করে থাকে।
  • চিনাবাদাম রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করেঃ নিয়মিত প্রতিদিন চিনাবাদাম খেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় এবং ডায়াবেটিসের ঝুঁকি রোধ করে।
  • দেহকোষ সুরক্ষা করেঃ চিনাবাদামে প্রচুর পরিমানে নিয়াসিন থাকে যা দেহকোষ সুরক্ষা করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।
  • শারীরিক শক্তি বৃদ্ধিতে চিনাবাদামঃ চিনাবাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমানে প্রোটিন। সকাল বেলা খালি পেটে বাদাম খেলে শরীরে প্রচুর পরিমানে এ্যানার্জি আসবে এবং মন সতেজ থাকবে।

পেস্তা বাদামে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমানে পটাসিয়াম, ফসফরাস, কপার, সোডিয়াম, ভিটামিন, ম্যাগনেসিয়াম।

পেস্তা বাদামের স্বাস্থ্য উপকারিতাঃ

  • কিডনি ও লিভার ভাল রাখতে পেস্তা বাদাম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।
  • পেস্তা বাদাম রক্ত শুদ্ধ করে মানুষের শরীরে বিভিন্ন প্রকার রোগ জীবানু থেকে রক্ষা করে থাকে।
  • পেস্তা বাদাম শরীরে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উৎপাদন করে ফুসফুসের ক্যান্সার প্রতিরোধে এবং হৃদযন্ত্র সুস্থ্য রাখতে কার্যকর ভূমিকা পালন করে থাকে।
  • আখরোটে আছে প্রচুর পরিমান আয়রন, ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, পটাসিয়াম, ফসফরাস, ভিটামিন, ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড।
আরো পড়ুনঃ হার্ট অ্যাটাক, অতঃপর করনীয়

আখরোটের স্বাস্থ্য উপকারিতাঃ

  • আখরোট হাড়ের গঠন শক্ত ও মজবুত করতে কাজ করে থাকে।
  • এ বাদাম খেলে শরীরের কর্মক্ষমতাও বাড়ে।
  • আখরোট খেলে ব্রেস্ট ও প্রোস্টেট ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে।
  • আখরোট ব্রেনে পুষ্টি জোগায় যার ফলে স্মৃতি শক্তি ভালো থাকে।

কাজু বাদামে আছে প্রচুর পরিমানে পটাসিয়াম, আয়রন, ভিটামিন-এ, ম্যাগনেসিয়াম।

কাজু বাদামের স্বাস্থ্য উপকারিতাঃ 

  • নিয়মিত কাজু বাদাম খাওয়ার ফলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কয়েকগুন বৃদ্ধি করে দেয়।
  • কাজু বাদাম শরীরের রক্তশূণ্যতা কমিয়ে দেয়।
  • কাজু বাদাম খেলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়। তাছাড়া রক্তে সুগারের পরিমান নিয়ন্ত্রণ করে ডায়াবেটিস এর প্রকোপ কমাতে কাজু বাদাম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

কাঠবাদাম বা আমন্ডকে বাদামের রাজা বলা হয়ে থাকে। কাঠবাদামে আছে ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ফাইবার, ফলিক এসিড, পটাসিয়াম, ভিটামিন ই ও ফসফরাস।

কাঠবাদাম বা আমন্ড এর স্বাস্থ্য উপকারিতাঃ

  • অন্যান্য বাদামের চেয়ে কাঠবাদামে সবচেয়ে বেশি পরিমানে ক্যালসিয়াম আছে। এটি কোষ্ঠকাঠিন্য, শ্বাসকষ্ট ও ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে কার্যকর ভূমিকা পালন করে।
  • কাঠবাদাম খেলে কোলন ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি খুব কম থাকে।
  • নিয়মিত কাঠবাদাম খেলে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে যায়, যার ফলে হৃদরোগ বা হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা থাকে না।
  • কাঠবাদাম মেধাশক্তি বাড়াতে কার্যকর ভূমিকা পালন করে থাকে।
  • হজমশক্তি বাড়াতে কাঠবাদাম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। শরীরে প্রয়োজনীয় পুষ্টি ও শক্তি জোগাতে কাঠবাদাম কার্যকর ভূমিকা পালন করে থাকে।
  • কাঠবাদাম রক্তে সুগার ও কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে থাকে।

পরিশেষে, বাদামের রয়েছে অসাধারন পুষ্টিগুন। বাদাম খেতে পছন্দ করে না এমন লোক খুব কমই পাওয়া যাবে। ছোট বাচ্চা থেকে শুরু করে বয়স্ক নারী পুরুষ সবারই পছন্দের এক খাবারের নাম বাদাম। বাদাম খেতে যেমন সুস্বাদু তেমনি এর স্বাস্থ্য উপকারিতাও অনেক। তাই আজে বাজে খাবার পরিত্যাগ করে নিয়মিত বাদাম খান, নিজে সুস্থ্য থাকুন, পরিবারের সকলকে সুস্থ্য রাখুন। আল্লাহ হাফেজ।

পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আশা করি আর্টিকেলটি আপনার ভালো লেগেছে। ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার অপশন থেকে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন এবং কমেন্ট বক্সে আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামত প্রদান করবেন। আর নিয়মিত পড়তে থাকুন আপনার প্রিয় ব্লগ সাইট www.healthnbeautyblog.com এ প্রকাশিত আর্টিকেলগুলি।

About the author : Mannan570

Leave A Comment